যে ৫টি কারণে ওয়ার্ডপ্রেস এত জনপ্রিয়

wordpress
Sending
User Review
5 (2 votes)

আপনি একটি ব্লগ শুরু করার পরিকল্পনা করছেন? তারপর আপনি সম্ভবত ভাবছেন কোনটি সেরা ব্লগিং প্ল্যাটফর্ম। অনেক ব্লগিং সফ্টওয়্যার আছে, যা আপনি ব্যবহার করতে পারেন। কিন্তু ওয়ার্ডপ্রেস আমার জন্য প্রথম পছন্দ। অবশ্যই আপনি ভাবছেন, ওয়ার্ডপ্রেস কেন?

ওয়ার্ডপ্রেস মূলত কনটেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম। চলুন ওয়ার্ডপ্রেসের জনপ্রিয়তার ৫টি কারণ জেনে নেই:

ওয়ার্ডপ্রেস সম্পূর্ণ ফ্রি: বিভিন্ন কারণেই, মানুষ বিনামূল্যে জিনিসপত্রের (আমারও পছন্দ) দিকে তাকাচ্ছে। আর যাই হোক, আপনি যদি বেশ কিছু টাকা বাঁচতে পারেন, তাহলে সেটাই ভালো নয় কি? আপনি এক টাকা খরচ না করেই ওয়ার্ডপ্রেস সেটআপ করতে পারেন এবং ব্লগিং শুরু করতে পারেন! সেক্ষেত্রে “something.wordpress.com” এ ধরণের সাবডোমেইনে আপনাকে ব্লগিং করতে হবে। আপনি ডোমেইন ও হোস্টিং ক্রয় করেও ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করতে পারেন। সেক্ষেত্রে “something.com” এ ধরণের ডোমেইনে কাজ করতে পারবেন।

ওয়ার্ডপ্রেস ইউজার ফ্রেন্ডলি: ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করা খুব সহজ। এটি ইনস্টল করার পরে, আপনি তা সরাসরি পরিচালনা করতে পারেন। ড্যাশবোর্ডে বাম দিকে মেনু অবস্থিত এবং এটির মাধ্যমে খুব সহজেই আপনি পোস্ট করতে বা কিছু পরিবর্তন করতে পারবেন।

যে ৫টি কারণে ওয়ার্ডপ্রেস এত জনপ্রিয়

রেসপন্সিভ ওয়েবসাইট: স্মার্টফোন সহজলভ্য হওয়ায়, বর্তমান সময়ে ডেস্কটপ/ল্যাপটপ দিয়ে খুব কম মানুষই ইন্টারনেট ব্যবহার করে। তাই আপনার ওয়েবসাইটটি যদি রেসপন্সিভ না হয়, তাহলে আপনি তুলনামূলকভাবে কম ট্রাফিক পাবেন। ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে ওয়েবসাইট তৈরি করলে, আপনার ওয়েবসাইটটি সয়ংক্রিয়ভাবেই রেসপন্সিভ হবে এবং সব ধরণের ডিভাইসেই কাজ করবে।

ওয়ার্ডপ্রেসের ফ্রি থিম আছে: ওয়ার্ডপ্রেসের শত শত ফ্রি থিম আছে। আপনি যদি আপনার ব্লগের আউটলুক পরিবর্তন করতে চান, আপনাকে শুধু এর থিম পরিবর্তন করতে হবে। ওয়ার্ডপ্রেস ইনস্টল করার পরে, আপনি স্বয়ংক্রিয়ভাবে শত শত বিনামূল্যের থিম ডাউনলোড করতে পারবেন। যা আপনি আপনার সাইটে ব্যবহার করতে পারবেন। এজন্য একটি সুন্দর থিম পছন্দ করে ইন্সটল করুন। এরপর ড্যাশবোর্ডের “Appearance” থেকে কয়েক ক্লিকেই থিম পরিবর্তন করতে পারবেন।

একাধিক ব্যবহারকারী: এর মানে হল যে, আপনি আপনার কিছু বিশ্বস্ত বন্ধুদের সাথে আপনার ব্লগ তৈরি করতে পারেন (যদি আপনি চান)। আপনি তাদের প্রত্যেককে নির্দিষ্ট নির্দিষ্ট ভূমিকা বরাদ্দ করতে পারেন। তারা ব্লগে আপনার দেওয়া সীমাবদ্ধতা অনুযায়ী অ্যাক্সেস করতে পারবে।

উদাহরণস্বরূপ, যদি আপনি আপনার বন্ধুকে আপনার ব্লগের সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ দিতে চান, তবে তাকে একজন “Admin” করতে পারেন। আবার যদি এমন কেউ থাকে, যে আপনার জন্য আর্টিকেল লিখবে। তবে আপনি তাদের “Author” হিসাবে নির্ধারণ করতে পারেন, যাতে তারা নতুন পোস্টগুলি আপলোড করতে পারে। কিন্তু আপনার ব্লগের গুরুত্বপূর্ণ অংশগুলি বা এটি কীভাবে কাজ করে তা পরিবর্তন করতে পারবে না।

এরকম অনেক কারণেই ওয়ার্ডপ্রেস বেশ জনপ্রিয়। আপনি যদি ব্লগিং করতে চান, ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে শুরু করতে পারেন।

Facebook Comments

Related posts

Leave a Comment