টুইটারের অপরিহার্য ৭টি টুল: টুইটার মার্কেটিং

twitter-marketing-tool
Sending
User Review
5 (1 vote)

টুইটার মার্কেটিংয়ে সেরা ফলাফল পেতে হলে আপনাকে অবশ্যই Third Party Tool ব্যবহার করতে হবে। কারণ, এই টুলগুলোর মাধ্যমে টুইটারে অতিরিক্ত ফিচার যুক্ত করা যায়, যার ফলে আপনার মার্কেটিং আরও সহজ হবে।

স্বাগতম সবাইকে, আজ আমি টুইটারের জন্য অপরিহার্য ৭টি টুল আপনাদের সাথে শেয়ার করব। আশা করি সাথেই থাকবেন।

 

টু্ইটার মার্কেটারদের জন্য অপরিহার্য ৭টি টুল


 

ManageFlitter:

স্মার্ট টুইটার ব্যবহারকারিরা এই টুল ব্যবহার করে। এটি দিয়ে আপনি শিডিউল পোস্ট করতে পারবেন। আর এই টুল সর্বোচ্চ সংখ্যক ব্যবহারকারির কাছে আপনার পোস্ট দেখাবে। এর মাধ্যমে ফলোয়ারদের কাছে স্বয়ংক্রিয়ভাবে মেসেজও পাঠাতে পারবেন।

Audiense:

এটি একটি এন্টারপ্রাইজ লেভেলের টুইটার ম্যানেজমেন্ট টুল। এটি আপনাকে সর্বোচ্চ CTR কখন পাবেন, সেটা দেখাবে। আর এটি দিয়ে আপনি ফলোয়ারদের স্বয়ংক্রিয় মেসেজ পাঠানো এবং টার্গেটেড ব্যবহারকারি খুঁজে পাবেন।

Twilert:

এটা অনেকটা গুগল এলার্টের মত সার্ভিস! আপনাকে প্রথমেই আপনার কীওয়ার্ড দিয়ে Twilert একাউন্ট সেট-আপ করে নিতে হবে। টুইটারে যখন আপনি বা আপনার ব্র্যান্ডকে মেনশন করা হবে, তখন Twilert আপনাকে ইমেইল করে নোটিফিকেশন দিবে। এতে আপনি খুব দ্রুত আপনার ফলোয়ারদের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করতে পারবেন।

আর ব্র্যান্ডের সুখ্যাতি ধরে রাখতে হলে, ফলোয়ারদের অগ্রাধিকার দেয়া সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিংয়ের জন্য আবশ্যক।

Tweriod:

আপনার ফলোয়াররা কখন একটিভ থাকে, তা ট্র্যাক করতে পারলে বোধ হয় মন্দ হয় না! কী বলেন? Tweriod সেরকমই একটি টুল। এই টুলটি আপনার হয়ে আপনার ফলোয়ারদের ওপর একটু গুপ্তচরবৃত্তি করে দিবে!

আসলে কী, মার্কেটিং করতে হলে ফ্যান-ফলোয়ারদের সম্পর্কে ভাল ধারণা রাখতে হয়। এই টুল দিয়ে আপনার ফলোয়ারা কখন বেশি একটিভ থাকে তা জানতে পারবেন। এতে আপনি ঐ নির্দিষ্ট সময়ে টুইট করে ফলোয়ারদের কাছ থেকে ভাল সক্রিয়তা পাবেন।

TweetStats:

সবকিছুরই একটি সীমাবদ্ধতা থাকা দরকার। দিনে কতবার টুইট করবেন সেটিরও একটি সীমাবদ্ধতা আছে। এজন্য টুইটের ট্র্যাক রাখা জরুরী। TeetStats টুল দিয়ে আপনি অনায়াসে এই কাজটি করতে পারবেন। এর মাধ্যমে আপনি ঘন্টা, এবং মাস হিসেবে আপনার টুইটগুলোর ট্র্যাক রাখতে পারবেন।

Buffer:

অনেকেই আছেন একসাথে অনেকগুলো টুইট করেন। আপনি হয়ত এরকম অনিয়নিত্রত টুইট করে আপনার মূল্যবান ফলোয়ার হারাচ্ছেন। আপনার যদি নির্দিষ্ট সময় পর পর টুইট করতে ভাল না লাগে, তাহলে Buffer আপনার জন্য সেরা একটি টুল।

টুইটগুলোকে সারদিনে কয়েকভাগে ভাগ করে করলে অনেক ভাল ফলাফল পাওয় যায়। Buffer দিয়ে আপনি শিডিউল করে টুইট করতে পারবেন। ব্যালেন্সড টুইট ফলোয়ারদের কাছে আপনার ব্র্যান্ডের ভ্যালু বাড়াতে সাহায্য করে।

TweetReach:

একটি প্রিমিয়াম টুল দিয়ে আজকের আর্টিকেল শেষ করব। টুলটির নাম TweetReach। শুধু টুইট করলেই তো হবে না, টুইটার টুইটটি কত জন মানুষকে দেখাল সেটাও জানা দরকার।

TweetReach মার্কেটার এবং পাবলিক রিলেশন এক্সপার্টদের জন্য খুবই প্রয়োজনীয়। এই টুল দিয়ে আপনি দেখতে পারবেন ঠিক কতজনের কাছে আপনার টুইটটি পৌছেছে। এর ট্যাগলাইন “How far did your tweets travel?” – থেকেই টুলটির পরিষেবা সমর্কে জানা যায়। টুলটি ব্যবহার করতে হলে আপনাকে মাসে ৮৪ ডলার খরচ করতে হবে।

আমার জানা মতে এগুলোই ছিল টুইটারের জন্য ভাল কিছু টুল। আপনার জানা মতে কোন টুলগুলো সেরা কমেন্ট করে জানাতে ভুলবেন না। আর অবশ্যই আপনার বন্ধুদের সাথে আর্টিকেলটি শেয়ার করুন।

Facebook Comments

Related posts

Leave a Comment